আরটিভিতে শুরু হচ্ছে ড্যানিশ প্রেজেন্টস ইয়াং স্টারের প্রচার

আরটিভিতে শুরু হচ্ছে ড্যানিশ প্রেজেন্টস ইয়াং স্টারের প্রচার

বিনোদন ডেস্ক: গানের নতুন মেধা অন্বেষণের আয়োজন ড্যানিস প্রেজেন্টস 'ইয়াং স্টার' প্রতিযোগিতা। এটি আয়োজন করেছে বেসরকারি জনপ্রিয় টিভি চ্যানেল আরটিভি৷ আগামীকাল ২৩ নভেম্বর থেকে এটির প্রচার শুরু হচ্ছে৷

সপ্তাহে প্রতি মঙ্গল ও বুধবার রাত ৮টায় আরটিভিতে প্রচারিত হবে 'গলা ছেড়ে গাও' স্লোগান নিয়ে আয়োজিত 'ইয়াং স্টার'। এছাড়াও অনুষ্ঠানটি আরটিভি প্লাস ও আরটিভি রিয়েলিটি শো-এর ফেসবুক পেইজ এবং ইউটিউব চ্যানেলে দেখা যাবে।

এ উপলক্ষে রাজধানীর তেজগাঁও এ অবস্থিত আরটিভির নিজস্ব স্টুডিও বেঙ্গল মাল্টিমিডিয়ায় আজ সোমবার (২২ নভেম্বর) বেলা ১২টায় এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন আরটিভির সিইও সৈয়দ আশিক রহমান, আরটিভির হেড অব প্রোগ্রাম দেওয়ান শামসুর রকিব, আরটিভির হেড অব মার্কেটিং সুদেব চন্দ্র ঘোষ।

আয়োজনটির পৃষ্ঠপোষক ড্যানিসের পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন জেনারেল ম্যানেজার মো. মোশারফ হোসেন ভূঁইয়া ও অ্যাসিস্ট্যান্ট জেনারেল ম্যানেজার মো. হাবিবুর রহমান চৌধুরী।

আরও উপস্থিত ছিলেন 'ইয়াং স্টার'-এর তিন বিচারক ইবরার টিপু, প্রতীক হাসান, পড়শী এবং এই রিয়েলিটি শো-এর উপস্থাপক মডেল, অভিনেতা ও উপস্থাপক ইমতু রাতিশ এবং নৃত্যশিল্পী, উপস্থাপিকা রুহানী সালসাবিল লাবণ্য।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, আরটিভি আয়োজিত তরুণদের জন্য সংগীত বিষয়ক নতুন রিয়েলিটি শো-টির স্টুডিও অডিশন রাউন্ড শেষ হয়েছে গেলো ১৭ নভেম্বর।

সোহাগ মাসুদের প্রযোজনায় মিউজিক্যাল এই রিয়েলিটি শোতে অংশগ্রহণের জন্য সারাদেশের পাশাপাশি বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে হাজার হাজার প্রতিযোগীরা আবেদন করেন। এর মধ্য থেকে নিয়ম অনুযায়ী মোট ৫ হাজার প্রতিযোগীর গান রেজিস্ট্রেশনের জন্য গ্রহণ করা হয়।

পরবর্তীতে এর বিচারক ইবরার টিপু, প্রতীক হাসান ও পড়শী যাচাই বাছাই করে স্টুডিও অডিশন রাউন্ডের জন্য মোট ১৫০ জনকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। নির্বাচিত ১৫০জন প্রতিযোগিকে নিয়ে রাজধানীর তেঁজগাও-এ অবস্থিত আরটিভির নিজস্ব স্টুডিও বেঙ্গল মাল্টিমিডিয়ায় ১৫ নভেম্বর শুরু হয় স্টুডিও অডিশন রাউন্ড। এই রাউন্ডে প্রতিযোগীরা সরাসরি বিচারকদের সামনে গান পরিবেশন করেন। ১৫০ জন প্রতিযোগীর মধ্য থেকে স্টুডিও অডিশন রাউন্ডে ইয়েস কার্ড পেয়েছে মোট ৮১ জন প্রতিযোগী। যারা লড়বে পরবর্তী রাউন্ডে।

সংবাদ সম্মেলনে আরটিভির সিইও সৈয়দ আশিক রহমান বলেন, 'সবাইকে ধন্যবাদ চমৎকার এই আয়োজনের সঙ্গে যারা জড়িয়ে আছেন। সবাই মিলে একটি উপভোগ করার মতো আয়োজন করেছেন। যাদের মেধা আছে কিন্তু সেই মেধা বিকাশের সুযোগ পান না তাদের জন্য আমরা এই আয়োজন করেছি।'

তিনি আরও বলেন, 'এরইমধ্যে আমরা আয়োজনটি নিয়ে দেশে বিদেশে অনেক সাড়া পেয়েছি। এবার এটি আরটিভির পর্দায় দেখার আমন্ত্রণ জানাই সবাইকে। আমি আশা রাখি এই আয়োজন থেকে দেশ অনেক মেধাবী সংগীত তারকা খুঁজে পাবে৷ যারা এই প্লাটফর্মটি ব্যবহার করে সংগীতচর্চায় অনেক অবদান রাখবেন।'

আরটিভির হেড অব প্রোগ্রাম দেওয়ান শামসুর রকিব বলেন, ''অনেক শ্রম ও মেধার সম্মিলিত একটি আয়োজন 'ইয়াং স্টার'। আশা করছি এর প্রচার শুরু হলে সবার ভালো লাগবে। আর এ প্রতিযোগিতার সকল প্রতিযোগীকে আমি শুভেচ্ছা জানাই।''

মো. মোশারফ হোসেন ভূঁইয়া বলেন, 'ড্যানিস আনন্দিত এই আয়োজনের সঙ্গী হতে পেরে। আশা করছি খুব উপভোগ্য হবে অনুষ্ঠানটি।'

মো. হাবিবুর রহমান চৌধুরী বলেন, 'আমরা খুব উৎসাহ নিয়ে এই আয়োজনের সঙ্গে সম্পৃক্ত হয়েছি৷ বাংলা গানের মেধাবীদের আমরা তুলে ধরতে চাই৷ আরটিভির এই আয়োজনের জন্য ধন্যবাদ জানাই।'

ইয়াং স্টার এর সম্মানিত বিচারক ইবরার টিপু বলেন, 'এটা অনেক বড় একটা দায়িত্ব। হাজার হাজার গান থেকে বাছাই করে সেরাদের নির্বাচন করা৷ আমি খুব আনন্দ নিয়ে কাজটি করছি। নিজেও অনেক কিছু শিখছি৷ সকল প্রতিযোগীদের অভিনন্দন জানাই।'

প্রতীক হাসান বলেন, 'এটা অনেক বড় একটা প্লাটফর্ম তাদের জন্য যারা গানকে মনে প্রাণে লালন করেন এবং তা সবার মাঝে ছড়িয়ে দিতে চান৷ যারা এখানে অংশ নিয়েছেন সবাই খুবই মেধাবী। সবারই সেরা হওয়ার যোগ্যতা রয়েছে। আশা করছি একটি উপভোগ্য প্রতিযোগিতা দেখবো এখানে।'

পড়শী বলেন, ''এই আয়োজনে আমার অংশ নেয়াটা দারুণ একটা অনুভূতি আমার জন্য৷ ১৩ বছর আগে আমি নিজেও এমন একটা রিয়েলিটি শো থেকে এসেছিলাম। আজ বিচারক। তাই 'ইয়াং স্টার'কে আমি মন থেকে ফিল করতে পারছি। আশা করি এই আয়োজন গানের আঙিনায় নতুন মাত্রা যোগ করবে।''

এই অনুষ্ঠানের প্রযোজক সোহাগ মাসুদ বলেন, ''সারা দেশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা তরুণ সংগীত প্রতিভাকে সবার কাছে তুলে ধরতেই এই আয়োজনের পরিকল্পনা। অভাবনীয় সাড়া পেয়েছি আমরা। ১২ হাজারেরও বেশি প্রতিযোগী গান পাঠিয়েছিলেন রেজিস্ট্রেশন করে। সেখান থেকে আমরা ১৫০ জনকে নিয়ে মূল পর্ব শুরু করছি। আশা করছি সবার মন ছুঁয়ে যাবে 'ইয়াং স্টার'।''