উখিয়ায় রোহিঙ্গাদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ১০

উখিয়ায় রোহিঙ্গাদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ১০

কক্সবাজার প্রতিনিধি: উখিয়ার বালুখালি ১৮ নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আরাকান বিদ্রোহী সন্ত্রাসী গ্রুপ আল-ইয়াকিন সন্ত্রাসীরা গুলি করে ও দা কিরিচ দিয়ে অন্তত ১০ জন রোহিঙ্গাকে হত্যা করেছে। ওই সন্ত্রাসীদের হামলায় ২০ জন আহত হয়েছে বলে রোহিঙ্গারা জানিয়েছেন।

শুক্রবার ভোর রাতে জাফইজ্জা বাজার এলাকায় এই ঘটনা ঘটে বলে। পুলিশ গতকাল শুক্রবার সকালে ঘটনাস্থল থেকে ৬ জনের লাশ উদ্ধার করলেও বাকি ৪ জনের লাশ গুম করেছে রোহিঙ্গারা। এ ঘটনায় আহত ২০ জনকে বালুখালী ম এমএসএফ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ক্যাম্পে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

নিহতরা হচ্ছে বালুখালি ১৮ নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের আজিজুল হক (১৭), মো: আমিন (৩৫), জামাল উদ্দিন (২১), হাবিবুল্লাহ (৬০), মো: ইব্রাহিম (২০), হাফেজ ইদ্রিস (৩৫)। অপর রোহিঙ্গাদের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

কক্সবাজার জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, ভোর ৪টার দিকে একদল ওই ক্যাম্পের মাদ্রাসায় হামলা করে। আরেক দল তাদের প্রতিরোধ করতে যায়। এই নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষ হয়। রক্তক্ষয়ী এই সংঘর্ষে ১০ নিহত এবং ৯ জন আহত হয়েছে। যারা মারা গেছে তাদের গুলিতে ও কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। কারও কারও হাতের আঙুল, পা বিচ্ছিন্ন করে ফেলা হয়েছে। ক্যাম্পে অভিযান চলছে।

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত ৮ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন এপিবিএন-এর এএসপি কামরুল হোসেন জানান, শুক্রবার ভোরে উখিয়া বালুখালী ১৮ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে রোহিঙ্গাদের দুই গ্র“পের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ সময় গোলাগুলি ও ধারালো অস্ত্রের আঘাতে সাত রোহিঙ্গা নিহত হয়েছে। তাদের মধ্যে চারজন ঘটনাস্থলে ও তিনজন হাসপাতালে নেয়ার পর মারা যায়। এ ঘটনায় আহত হয়েছে ১০/১২ জন রোহিঙ্গা।

তিনি আরও জানান, ঘটনার পরপরই এপিবিএন পুলিশ এবং জেলা পুলিশ বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নিহতদের উদ্ধার এবং অস্ত্রধারীদের গ্রেপ্তারে অভিযান শুরু করেছে। পুলিশ এ পর্যন্ত একজনকে আটক করেছে। তার কাছ থেকে ছয় রাউন্ড গুলি ও একটি লম্বা ছুরি উদ্ধার করা হয়েছে।

রোহিঙ্গা নেতা মো. রফিক বলেন, ক্যাম্পে থমথম পরিস্থিতি বিরাজ করছে। ঘটনাস্থল ও আশপাশে অতিরিক্তি পুলিশ মোতায়েত করা হয়েছে।

বিআলো/শিলি