মানিকের কথা ও সুরে ফজলুর রহমান বাবু’র ফেসবুক ফড়িং

মানিকের কথা ও সুরে ফজলুর রহমান বাবু’র ফেসবুক ফড়িং

বিনোদন প্রতিবেদক: গানের নাম ফেসবুক ফড়িং। বাংলাভাষায় এই ধরনের শব্দ একেবারেই নতুন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের উপর মানুষের একচ্ছত্র নির্ভরতা এবং জীবনের গভীর অর্থকে রূপক হিসেবে তুলে ধরে নির্মিত হয়েছে ব্যতিক্রমী গান ‘ফেসবুক ফড়িং’।

গানের কথাগুলো এরকম: মানুষ একটা ফেসবুক ফড়িং মন রে/ডাটা থাকলে থাকলে করা যায় স্ক্রলিং/ডাটা না থাকলে বাফারিং...মানুষ একটা ফেসবুক ফড়িং। সাংবাদিক, লেখক ও কণ্ঠশিল্পী আমিরুল মোমেনীন মানিকের লেখা ও সুরে গানটি গেয়েছেন সুখ্যাত অভিনেতা ও কণ্ঠশিল্পী ফজলুর রহমান বাবু। গানের শেষাংশে মানিক নিজেই উপস্থিত হয়েছেন স্বকণ্ঠে। সঙ্গীত পরিচালনায় ছিলেন এস কে সমীর।  ইতোমধ্যে গানটির একটি ভিডিও নির্মিত হয়েছে। ভিডিও পরিচালনা করেছেন ফয়সাল আহমেদ সিরাজী। ৭ নভেম্বর রোববার গানটি মুক্তি পাবে আমিরুল মোমেনীন মানিকের ব্যক্তিগত ইউটিউব চ্যানেল মানিক মিউজিক এ।

গানটি নিয়ে ব্যাপক উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন ফজলুর রহমান বাবু । তিনি বলেন, দীর্ঘদিন পর অন্যরকম একটি গান গাইলাম। বর্তমান সময় ও ট্রেন্ডকে ধারণ করে মানুষের জীবনের নিগূঢ় রহস্য এখানে সহজভাবে তুলে ধরা হয়েছে। মানিক তাঁর লেখা ও সুরে প্রচলিত বাংলা গানের ঢং ভেঙে নতুন গীতিময়তা তৈরীর একটি সুষ্পষ্ট আভাস দিয়েছে। তাছাড়া ফেসবুক ফড়িং নির্মাণের পেছনে সবাই আন্তরিকতার পূর্ণ উদাহরণ রেখেছেন ।

গানটি প্রসঙ্গে আমিরুল মোমেনীন মানিক বলেন, জীবনের শাশ^ত বাণী নিয়েই তৈরী হয়েছে ফেসবুক ফড়িং। তবে এর স্বাতন্ত্র্য দিক হলো, বর্তমানের সঙ্গে অতিত ও ভবিষ্যতের অভূতপূর্ব মেলবন্ধন। ফজলুর রহমান বাবু ভাই এক কথায় উতরে গেছেন। অসাধারণ গেয়েছেন। ভিডিও’র নির্মাতাও যথাসাধ্য শ্রম দিয়েছেন। আশাকরছি, শ্রবন ও দর্শনের দীর্ঘদিনের একঘেয়েমির ধারাকে ভেঙে নতুন কান ও চোখ তৈরী করবে ফেসবুক ফড়িং।

আমিরুল মোমেনীন মানিক ইতোমধ্যে জীবনমুখী গানে তৈরী করেছেন শক্ত অবস্থান। তাঁর অবাক শহরে, আয় ভোর ও মা শিরোনামের ৩টি এ্যালবাম সংগীতপ্রেমীদেরকে অন্যরকম বার্তা দিয়েছে।

এছাড়া কিংবদন্তি কণ্ঠশিল্পী নচিকেতা চক্রবর্তীর সঙ্গে তাঁর গাওয়া‘আয় ভোর’ গানটি দুই বাংলাতে ব্যাপকভাবে জনপ্রিয়।মানিক গানের জন্য ভারতের পশ্চিমবঙ্গ ও ত্রিপুরায় সংবর্ধিত হয়েছেন। সম্প্রতি তিনি পেয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর সঙ্গীত সম্মাননা।

এছাড়া লেখক হিসেবেও রয়েছে তাঁর আলাদা পরিচিতি। ২০১২ সালের বাংলা একাডেমি বইমেলায় মানিকের লেখা ‘বিশ^বিদ্যালয়ের কতিপয় স্টুপিড শিক্ষক’ বেস্ট সেলারের মাইলফলক অর্জন করে। বাংলাদেশে ইউটিউব জার্নালিজমের ধারণা দিয়ে সাংবাদিকতায় নতুন এক যুগের শুরু করেছেন আমিরুল মোমেনীন মানিক।