`মাসিক নিয়মিতকরণ সেবার জন্য চাই সচেতনতা’

`মাসিক নিয়মিতকরণ সেবার জন্য চাই সচেতনতা’

নিজস্ব প্রতিবেদক: মাসিক নিয়মিতকরণ (এমআর) এবং ওষুধের সাহায্যে মাসিক নিয়মিতকরণ (এমআরএম) সেবাগুলো অপরিহার্য। এবং এসব সেবা সম্পর্কে মানুষকে সচেতন করে তুলতে উদ্যোগ নেয়া প্রয়োজন। এ বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে রেডঅরেঞ্জ (RedOrange) এবং নিয়ার্স (NEARS ) আয়োজিত এক সেমিনারে এ কথা বলেন বক্তারা। গত ২৮ অক্টোবর ঢাকার একটি হোটেলে সেমিনারে অংশ নেয়া এমআর সেবা প্রদানকারীরা তাদের অভিজ্ঞতা এবং চ্যালেঞ্জ সম্পর্কেও জানান।

 

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অধীনে পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (গ্রেড-১ ) শাহান আরা বানু বলেন, এমআর সার্ভিসের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে এই সেমিনারে যে বিষয়গুলো উঠে এসেছে তার উপর গুরুত্ব দিয়ে ভবিষ্যতে কাজ করা হবে।

 

বিশেষ অতিথি লাইন ডিরেক্টর (এফপি - এফএসডি), স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. আমিনুল ইসলাম বলেন, সাধারণত এম আর সেবা নিয়ে সেবা গ্রহণকারী ও সেবা প্রদানকারীর মধ্যে জানাশোনা এবং দৃষ্টিভঙ্গির ব্যবধান রয়েছে।

 

বাংলাদেশে মাতৃমৃত্যুর হার কমাতে এমআর এবং এমআরএম সরকারিভাবে বৈধ। কিন্তু দেশের অনেক নারী ও মেয়ে এ সম্পর্কে জানেন না। সেই সাথে ধর্মীয় এবং সামাজিক কারণে এমআর ও এমআরএম সেবা দিতে দ্বিধা বোধ করেন সেবা প্রদানকারীরা। আর এর ফলে অনেক নারী বা মেয়ে তাদের অনাকাঙ্খিত গর্ভপাতের জন্য  আশ্রয় নেন অনভিজ্ঞ সেবা প্রদানকারীর কাছে। অদক্ষ হাতে অনিরাপদ গর্ভপাতের কারণে অনেক মাতৃমৃত্যু ঘটে থাকে ।

 

বিশেষ অতিথি (এমসিএইচ-সার্ভিসেস) এবং লাইন ডিরেক্টর (এমসি-আরএএইচ), স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অধীনে পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. মোহাম্মদ শরীফ, বলেন, ২০১৪ সালে আমরা এমআর নিয়ে সঠিক দিক নির্দেশনা পেয়েছি যা এই সেবার মানকে উন্নত করেছে।

 

সেইফটি উইংয়ের আয়োজনে সেমিনারটি অনুষ্ঠিত হয়। সচেতনতা বৃদ্ধি এবং সঠিক তথ্য সরবরাহের উপর গুরুত্ব আরোপ করে দেশের তিন জেলায় এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। রেড অরেঞ্জ মিডিয়া অ্যান্ড কমিউনিকেশন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক অর্ণব চক্রবর্তী বলেন, সমাজের প্রতিটি কোনে এমআর সম্পর্কে ভ্রান্ত ধারণা বিদ্যমান। এমএর বিষয়টিকে স্বাভাবিকভাবে গ্রহণ করতে জনসচেতনতার জন্য সামগ্রিকভাবে কার্যক্রম হাতে নেয়া প্রয়োজন।