শীতার্তদের মুখে উষ্ণতার হাসি ফুটালো বসুন্ধরা গ্ৰুপ

শীতার্তদের মুখে উষ্ণতার হাসি ফুটালো বসুন্ধরা গ্ৰুপ

নিজস্ব প্রতিবেদক : 'ঠাণ্ডাত কষ্টে আচুনু। তারপুর বিষ্টি আর বাতাসে গা থাইকি শীত য্যায় না। কম্বলখানি প্যায়া বাঁচনু বাবা রে।' বসুন্ধরা গ্রুপের দেওয়া কম্বল পেয়ে কথাগুলো বলছিলেন নাটোরের গুরুদাসপুর পৌর সদরের চাঁচকৈড় খোয়ারপাড়া মহল্লার ১১০ বছর বয়সী রূপম বিবি।

বসুন্ধরা গ্রুপের সহায়তায় ও কালের কণ্ঠ শুভসংঘের আয়োজনে বুধবার দুপুরে গুরুদাসপুর মডেল পাইলট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে পত্রিকা হকারসহ ২৫০ জন শীতার্ত মানুষের মাঝে শীতের কম্বল বিতরণ করা হয়। কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আনোয়ার হোসেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. তমাল হোসেন ও পৌর মেয়র শাহনেওয়াজ আলী। এর আগে বড়াইগ্রাম উপজেলার রামেশ্বরপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে সকাল ১১টায় কম্বল বিতরণ করেন প্রধান শিক্ষক সরোয়ার হোসেন পিঞ্জু। বড়াইগ্রামের রোলভা বাজারের রহমত মিয়া (৭০), হালিমা বেগম (৯০), সখিনা বেওয়াসহ (৮১) অনেকেই কম্বল পেয়ে বসুন্ধরা গ্রুপের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে তাদের সমৃদ্ধি কামনা করেন।

​​​​​​'কয়দিন ধইরা জারের জন্যি মেল্যা কষ্ট করতেছি। একটো কম্বলের খুউব দরকার আছিল। চোহে দেহি না। কেউই দেয় নাই। আইক্যা আপনেরা দিলেন। কম্বলডা পায়্যা খুব উপকার অইলো। এহুন আর জার ধরবোনিনা। আর কাউক কম্বলের কথা কওয়াও ল্যাগব্যানিনা।’বসুন্ধরা গ্রুপের দেওয়া কম্বল পাওয়ার পর এভাবেই কথাগুলো বলছিলেন বগুড়ার ধুনট উপজেলার কালেরপাড়া ইউনিয়নের আড়কাটিয়া গ্রামের জন্মান্ধ দুখুনি খাতুন। তার মতো এ রকম আরো ২০০ দরিদ্র মানুষ একটি করে কম্বল পেয়ে খুব খুশি। তারা হাসলেন, তৃপ্তির হাসি।

বসুন্ধরা গ্রুপের সহায়তায় কালের কণ্ঠ শুভসংঘের আয়োজনে বুধবার সকাল ১১টায় ধুনট সরকারি এনইউ পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয় খেলার মাঠে এসব কম্বল বিতরণ করা হয়। কালের কণ্ঠ শুভসংঘ ধুনট উপজেলা শাখার সভাপতি রেজাউল হক মিন্টুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন ধুনট পৌরসভার মেয়র এজিএম বাদশাহ। অনুষ্ঠানে এজিএম বাদশাহ বলেন, বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বসুন্ধরা গ্রুপের এই উদ্যোগ প্রশংসনীয়। তারা করোনাকালে খাদ্য সহায়তার পর এবার কম্বল নিয়ে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। সব মানুষ সামর্থ্য অনুযায়ী অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ালে সমাজে কারো কষ্ট থাকবে না। বসুন্ধরা গ্রুপকে ধন্যবাদ জানিয়ে সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

শীতের তীব্রতায় কষ্টে আছে বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার ছিন্নমূল ও দরিদ্র শ্রেণির মানুষ। শীতার্ত এসব মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে দেশের শীর্ষস্থানীয় বসুন্ধরা গ্রুপ। বুধবার (১২ জানুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টায় দেশের শীর্ষস্থানীয় বসুন্ধরা গ্রুপের অর্থায়নে এবং কালের কণ্ঠ শুভসংঘ নন্দীগ্রাম উপজেলা শাখার আয়োজনে কুন্দারহাট হাই স্কুল মাঠে শীতার্তদের মাঝে ২০০ পিস কম্বল বিতরণ করা হয়। বসুন্ধরার এসব কম্বল পেয়ে খুশি শীতার্তরা।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কালের কণ্ঠ শুভসংঘ নন্দীগ্রাম উপজেলা শাখার প্রধান উপদেষ্টা ও জেলা পরিষদের সদস্য আনোয়ার হোসেন রানা। এ সময় তিনি বলেন, দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্প গ্রুপ হচ্ছে বসুন্ধরা। বসুন্ধরা গ্রুপের এই উদ্যোগ প্রশংসনীয়। করোনাকালে খাদ্য সহায়তার পর এবার শীতে কম্বল নিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন। ‘শুভসংঘের এমন ব্যতিক্রমী উদ্যোগ সত্যিকার অর্থেই প্রশংসার দাবি রাখে।’

কালের কণ্ঠের যুগপূর্তি উপলক্ষে যশোরের অভয়নগরে এতিম ছাত্রদের মাঝে শীতবস্ত্র হিসেবে বসুন্ধরা গ্রুপের কম্বল বিতরণ করা হয়েছে। অভয়নগর উপজেলা শুভসংঘের আয়োজনে বুধবার (১২ জানুয়ারি) দুপুরে নওয়াপাড়া সরকারি মহাবিদ্যালয় মাঠে চলিশিয়া ইউনিয়নের কোটা মাদরাসা ও এতিমখানার ছাত্রদের মাঝে কম্বল বিতরণ করা হয়।