শালিখায় আমন ধানের বাম্পার ফলন

শালিখায় আমন ধানের বাম্পার ফলন

মাগুরা প্রতিনিধি : মাগুরার শালিখায় চলতি বছর আমন ধানের বাম্পার ফলনের সম্ভবনা রয়েছে। ধানের গোছা ভালো হওয়ায় চাষিদের পরিবারে বইছে খুশির জোয়ার। ইতোমধ্যে বেশ কিছু এলাকায় ধানে থৌড় এসেছে। নবেম্বরের মধ্যে ধান কাটা শুরু হয়ে ডিসেম্বর ও জানুয়ারীর মধ্যে শেষ হবে বলে কৃষকরা জানিয়েছেন।


তবে সময়মতো রোদ-বৃষ্টি হওয়ায় চলতি বছর অনাবাদি জমিতেও ধানের বাম্পার ফলনের সম্ভবনা রয়েছে।
শালিখা উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অফিস সূত্রে জানা গেছে, এবার উপজেলায় আমন ধান আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১৪,১৪০ হেক্টর জমিতে। গত বছরের তুলনায় এবছর ২০হেক্টর জমি বেশি চাষ হয়েছে। ধান উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা এখন পর্যন্ত নির্ধারণ হয়নি।
আড়পাড়া গ্রামের কৃষক কৃতান্ত রায় জানান, এবছর বেশ কয়েক একর জমিতে বিভিন্ন জাতের ধান চাষ করেছি। ফলনও ভালো হবে বলে আশা করছি। তবে বাজারে ন্যায্যমূল্য পেলে ধানের ভর্তুকি দিতে হবে না।


একই গ্রামের কেনায়েত বিশ্বাস, উদ্দোপ মন্ডল জিল্লুর রহমান, ভাটোয়াইল গ্রামের রেজাউল ইসলামসহ আরো অনেকেই বলেন, অন্য বছরের তুলনায় এ বছর আমন ধানের ফলন ভালো হবে। আশা করি সঠিক বাজার মূল্য পেলে আমরা কৃষকরা লাভবান হবে ।


শতখালী গ্রামের কুটি মিয়া ও বিকাশ মন্ডল বলেন, ৪ একর জমিতে আমাদের ধান আবাদ হয়েছে। ধানের ফলনও ভাল হবে আশা করি।


 

ধনেশ্বর গাতি গ্রামের বিপুল বিশ্বস বলেন এক সময় ধনেশ্বরগাতি গ্রামে যেসব জমিতে আমন ধান চাষ করা যায়নি, এ বছর সেসব জমিতে ধানের বাম্পার ফলনের সম্ভবনা আছে। গবেষক শ্রী ইন্দ্রনীল বিশ্বাস বলেন এবছর বিঘা প্রতি ১৯-২০ মণ ধান হবে বলে আশা করা যাচ্ছে। ফলন ভালো হওয়ার সম্ভবনায় কৃষকদের মধ্যে আনন্দ বিরাজ করছে।


একই এলাকার কৃষক শমিরন বিশ্বাস ও ধনেশ্বরগাতি কালিবাড়ীর তপা বিশ্বাস তপন জানান, কিছুটা ইঁদুরের উপদ্রব রয়েছে। যদি ইঁদুরের উপদ্রব না থাকতো তাহলে আমন ধানের ফলন আরও ভালো হতো। ১১-১২ বিঘা জমি চাষ করতে ৪০-৫০ হাজার টাকা খরচ হয়। উৎপাদন খরচ বাদেও এবছর চাষাবাদে ভাল লাভ হবে।


শালিখা উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মো. আলমগীর হোসেন জানান, কৃষি বিভাগের সুষ্ঠু তদারকি এবং আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় ও সময়মতো রোদ বৃষ্টি হওয়াতে এবার আমন ফসলে পোকার আক্রমণ এবং রোগবালাইয়ের প্রকোপ নেই বললেই চলে। ফলে এই উজেলায় সার্বিকভাবে আমন ধানের ফলন ভালো হবে। তবে যে সমস্ত জমি পানির নিচে সেই সব জমিতে রবি সরিসার চাষ হবে।


 বিআলো/শিলি