সহজে অনুদানের সুবিধার্থে সাদাকাহ অ্যাকাউন্ট চালু করলো স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক

সহজে অনুদানের সুবিধার্থে সাদাকাহ অ্যাকাউন্ট চালু করলো স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক: স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড সাদিক সাদাকাহ অ্যাকাউন্ট এমন একটি উপযুক্ত এবং টেকসই উপায়, যার মাধ্যমে ক্লায়েন্টরা তাদের ক্ষমতা অনুযায়ী জনকল্যাণে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে সক্ষম হবে। স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক এই অনন্য উদ্যোগটি প্রথমবারের মতো প্রচলন করছে। 

সাদিক সাদাকাহ অ্যাকাউন্ট একটি মুদারাবা ভিত্তিক সঞ্চয়ী অ্যাকাউন্ট যা সাদাকাহ (দান) সংক্রান্ত জনহিতকর কাজ সমর্থন করার লক্ষ্যে ডিজাইন করা হয়েছে। এ অ্যাকাউন্ট সামগ্রিকভাবে সমাজকে টেকসই উন্নয়নের দিকে অগ্রগামী করবে। 
অ্যাকাউন্টটি এমনভাবে ডিজাইন করা হয়েছে, যাতে ক্লায়েন্টরা এটি থেকে প্রাপ্ত মুনাফা নির্বিঘ্নে তাদের পছন্দের দাতব্য প্রতিষ্ঠানে দান করতে পারে। 

মুদারাবা পুলের অংশ হিসেবে, সম্পূর্ণরূপে শরীয়াহ নীতি মেনে ক্লায়েন্টদের মুনাফা গণনা এবং প্রযোজ্য কর কর্তনের পর সেই অর্থ দাতব্য অ্যাকাউন্টে স্থানান্তরিত হবে। ক্লায়েন্টরা সামগ্রিকভাবে যাচাইকৃত সর্বোচ্চ ৫টি দাতব্য উন্নয়নমূলক সংগঠন নির্বাচন করতে পারবেন। এ সকল সংগঠনসমূহ প্রতিটিই জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যগুলির সাথে সংযুক্ত ও সম্পর্কিত। 

 

৫টি দাতব্য উন্নয়নমূলক সংগঠন ও তাদের এরিয়া অব ফোকাস হলো: জাগো- সুবিধাবঞ্চিত শিক্ষার্থীদের জন্য শিক্ষা, জলবায়ু বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টিকারী প্রোগ্রাম। 
ইউসিইপি বাংলাদেশ-    নারী দক্ষতা উন্নয়ন। 
ফ্রেন্ডশিপ-    নারী ও শিশু স্বাস্থ্য, টেকসই অর্থনৈতিক উন্নয়ন (কারিগর কর্মসংস্থান), জলবায়ু অ্যাকশন। 
সিআরপি বাংলাদেশ-প্রতিবন্ধীদের পুনর্বাসন ও সহায়তা (স্বাস্থ্যসেবা)।

এবং পিএফডিএ-ভোকেশনাল ট্রেনিং সেন্টার-    প্রতিবন্ধী শিশুদের দক্ষতা উন্নয়ন।

স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড বাংলাদেশ-এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) নাসের এজাজ বিজয় বলেন, কোভিড -১৯ মহামারিকালে আমরা মানুষের দানশীল মনোভাব লক্ষ্য করেছি। ক্ষমতাসম্পন্ন মানুষেরা এ বিপদকালে আরও বেশি করে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিচ্ছেন। জনকল্যাণের উদ্দেশ্যে এই ইতিবাচক পরিবর্তনগুলি যাতে আরও বৃদ্ধি পায়, সে লক্ষ্যেই আমাদের এই সাদাকাহ অ্যাকাউন্ট। আমি ধন্যবাদ জানাতে চাই আমাদের অংশীদারদের, যারা সমাজে এই অর্থপূর্ণ পরিবর্তন আনতে এই অনন্য উদ্যোগে আমাদের সাথে কাজ করেছেন।

স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড বাংলাদেশ-এর কনজিউমার, প্রাইভেট এবং বিজনেস ব্যাংকিং-এর প্রধান সাব্বির আহমেদ বলেন, সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়ার কথা বিবেচনায় আনার এখনই সময়। সাদাকাহ অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে আমাদের ক্লায়েন্টরা জনসাধারণের উদ্দেশ্যে একটি দীর্ঘমেয়াদী সহায়তা প্রদান করতে পারবে। 

প্রাতিষ্ঠানিক ও ব্যক্তি পর্যায়ে গ্রাহকদের জন্য স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড সাদিক বাংলাদেশে একমাত্র আন্তর্জাতিক ইসলামিক ব্যাংকিং ব্যবস্থা। এশিয়া, আফ্রিকা ও মধ্যপ্রাচ্যে শরিয়া সম্মত পণ্যের মাধ্যমে নতুন বাজারে প্রবেশে আগ্রহী গ্রাহকদের একটি অপ্রতিদ্বন্দ্বী নেটওয়ার্ক সুবিধা দিয়ে আসছে প্রতিষ্ঠানটি। নিজস্ব নেটওয়ার্কের মাধ্যমে স্থানীয় ব্যবসায়ের বৈশ্বিক সম্প্রসারণে সামঞ্জস্যপূর্ণ সুযোগগুলোকে ব্যবসায়-বান্ধব করতে মূল চালিকাশক্তি হিসেবে কাজ করছে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড সাদিক। স্থানীয় ব্যবসাগুলিকে বৈশ্বিক হালাল ইকোসিস্টেমের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত করার লক্ষ্যে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড সাদিক এর শক্তিশালী নেটওয়ার্কের মাধ্যমে, বিশ্বমানের 'হালাল ৩৬০' সমাধান প্রদান করে। 'হালাল ৩৬০' অভ্যন্তরীণ এবং আন্তর্জাতিক উভয় ব্যবসায়িক চক্রের প্রতিটি ধাপে সঠিক সমাধান প্রদান করে থাকে।

 

২০২১ সালে বাংলাদেশে সাদিক দীর্ঘ ১৬ বছরের কর্মপরিচালনা পূর্ণ করলো। স্ট্যান্ডার্ড টার্চার্ড সাদিক ২০০৭ সালে প্রথম ইসলামী ক্রেডিট কার্ড চালু করা থেকে শুরু করে ২০১৯ সালে বাজারে প্রথম সুকুক লেনদেনের ব্যবস্থা করা সহ বেশ কয়েকটি অভিনব সেবা চালু করার মাধ্যমে এদেশে ইসলামী ব্যাংকিংয়ের পথে নেতৃত্ব দিয়েছে। শ্রেষ্ঠত্বের উপর সর্বদা কাজ করার দরুন স্ট্যান্ডার্ড টার্চার্ড সম্প্রতি অ্যাসেট ট্রিপল ‘এ’ ইসলামিক ফাইন্যান্স অ্যাওয়ার্ড, দ্য ব্যাংকার ইসলামিক ব্যাংক অব দ্য ইয়ার, দ্যা ডিজিটাল ব্যাংকার অ্যাওয়ার্ড ফর বেস্ট ইসলামিক ডিজিটাল সিএক্স অ্যাওয়ার্ড এবং গ্লোবাল ফাইন্যান্সের সেরা ইসলামিক আর্থিক প্রতিষ্ঠান সহ বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক পুরস্কার অর্জনে সক্ষম হয়েছে।