হেলিকপ্টার হুজুর জৈনপুরী পীরের বিরুদ্ধে রেলওয়ের জমি দখলের মামলা

হেলিকপ্টার হুজুর জৈনপুরী পীরের বিরুদ্ধে রেলওয়ের জমি দখলের মামলা

নারায়ণগঞ্জ ব্যুরো :হেলিকপ্টার হুজুর হিসাবে খ্যাত নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের পাঠানটুলী এলাকার এনায়েত উল্লাহ আব্বাসী ওরফে জৈনপুরী পীরের বিরুদ্ধে জমি দখলের মামলা দায়ের করেছে বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। শনিবার ২৭ জুলাই দুপুরে বাংলাদেশ রেলওয়ের ঢাকা বিভাগীয় এস্টেট অফিসের কানুনগো মোঃ ইকবাল মাহমুদ বাদী হয়ে এ মামলাটি দায়ের করেন।

 

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, সিদ্ধিরগঞ্জের পাঠানটুলী এলাকার মৃত নাছির উল্লাহ আব্বাসীর ছেলে অভিযুক্ত এনায়েত উল্লাহ আব্বাসী (জৈনপুরী পীর), ওবায়েদ উল্লাহ আব্বাসী ও নেয়ামত উল্লাহ আব্বাসী অবৈধ ও বেআইনী ভাবে নারায়ণগঞ্জ জেলার সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন হাজিগঞ্জ লেভেল ক্রসিং সংলগ্ন রেললাইনের পূর্ব পাশের্^ গোদনাইল মৌজার সি.এস ও এস.এ দাগ ১৭৯০, ১৭৯১, ১৭৯২, ১৮২২, ১৮২৪, ১৮২৫, ১৮২৬, ১৮২৮, ১৮২৯ ও ১৮৩০ নং দাগের রেলওয়ের ভূমিতে অবৈধভাবে মাটি ভরাট করে সেমিপাকা কাঠামো নির্মাণ করছেন। তাদের এই অবৈধভাবে কাঠামো নির্মাণ কাজে স্থানীয়ভাবে বাধা প্রদান করা হলেও তারা বাধা উপেক্ষা করে অবৈধভাবে নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

 

এছাড়াও এক বছর পূর্বে তারা রেলওয়ের ভূমিতে অবৈধভাবে টিনশেড মার্কেট নির্মাণ করেছেন। সরকারী রেলওয়ে সম্পত্তি দখল ও আতœসাৎ এর অপরাধে দন্ডবিধি অনুযায়ী ফৌজদারি মামলা দায়ের করার অনুরোধ করা হয়। উল্লেখ্য গত ২৬ মে নারায়ণগঞ্জ তিতাসের উপ-মহাব্যবস্থাপক বরাবর দুই শতাধিক এলাকবাসীর স্বাক্ষরিত স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়, পাঠানটুলীতে অবস্থিত জৈনপুরী পীর হিসেবে পরিচিত এনায়েত উল্লাহ আব্বাসীর বাড়িতে গত ১০ বছর ধরে গ্যাস চুরি চলছিল। ধর্মে কোন বিধান নাই রাষ্ট্রীয় সম্পদ প্রাকৃতিক গ্যাস চুরি করা।

 

একজন চিহ্নিত গ্যাস চোর কখনো মসজিদে বয়ান করতে পারে না। ধর্মের লেবাস লাগিয়ে রাষ্ট্রীয় সম্পদ গ্যাস চুরিসহ জৈনপুরীর সকল অপকর্মের বিচার চায এলাকাবাসী। এর আগে ২ মে জৈনপুরী পীরের বাড়ীতে নারায়নগঞ্জ তিতাস গ্যাস অফিসের সেলস্ ম্যানেজারের নেতৃত্বে একটি দল অভিযান চালিয়ে অবৈধ গ্যাস লাইন উদঘাটন করে।

 

২৫ এপ্রিল রাতে জৈনপুরী পীর এনায়েত উল্লাহ আব্বাসীর ছোট ভাই নেয়ামত উল্লাহ আব্বাসীসহ ১১ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত দেড়শ জনের বিরুদ্ধে এইচ এন এপারেলস লিমিটেড নামের গার্মেন্টের কর্মকর্তা মোঃ মহিউদ্দিন বাদি হয়ে ভাংচুর ও লুটপাটের অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

 

২২ ফেব্রুয়ারী দুপুরে নারায়ণগঞ্জ শহরের নবীগঞ্জ ফেরিঘাট এলাকায় দু’টি লঞ্চে নাশকতার উদ্দেশ্যে গোপন বৈঠক চলাকালে জৈনপুরী হুজুর এনায়েতউল্লাহ আব্বাসীর বড় ভাই সৈয়দ ইমদাদ উল্লাহ আব্বাসীসহ জামায়াত ও শিবিরের ১০ নেতা-কর্মীকে আটক করে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। এদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক এলাকাবাসী অভিযোগ করেন, ভন্ড পীর এনায়েত উল্লাহ আব্বাসী ওরফে জৈনপুরী পীর ও তার ভাইদের অত্যাচারে পাঠানটুলীসহ আশেপাশের এলাকার লোকজন অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে।

 

তারা অবৈধভাবে রেলওয়ের জমি বালি ভরাট করার ফলে পূর্ব পাঠানটুলী ও পানিরকল এলাকা অধিকাংশ সময় জলাবদ্ধতা দেখা দেয়। সামান্য বৃষ্টিপাত হলে এলাকার অনেকের বসতঘর পর্যন্ত পানিতে তলিয়ে যায়। এছাড়াও জৈনপুরী পীর রেলওয়ের জমিতে অবৈধভাবে মার্কেট নির্মাণ করে প্রতিমাসে মোটা অংকের ভাড়া আদায় করছে।

 

তাদের এসব অপকর্মের বিরুদ্ধে কথা বলাতে এনায়েত উল্লাহর তৈরী করা লাঠিয়াল বাহিনীর হাতে এলাকার অনেকেই নাজেহাল হয়েছে। সর্বশেষ ২৬ জুলাই জৈনপুরী পীরের বাহিনীর ক্যাডাররা পূর্বশত্রুতার জের ধরে এলাকাবাসীর উপর হামলা চালায়। কয়েকদিন আগে একটি গার্মেন্টেও হামলা চালায় জৈনপুরী পীরের ভাইয়ের বাহিনী।

 

এছাড়া জৈনপুরী পীরের এক ভাইকে জামায়াতের নাশকতার পরিকল্পনার অভিযোগে আটক করেছিল পুলিশ। সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি মীর শাহিন শাহ পারভেজ জানান, এনায়েত উল্লাহ আব্বাসী ওরফে জৈনপুরী পীরের বিরুদ্ধে সরকারী জমি দখলের মামলা নেয়া হয়েছে। আসামী গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে